এখন শুধুমাত্র ইউটিউবে ভিডিও দেখলেই আপনিও টাকা রোজগার করতে পারবেন! কিভাবে?

এখনকার সময়ে একটি ইউটিউব চ্যানেল খোলা খুবই কমন ব্যপার ৷ এর কারণ শুধু একটাই, সহজেই অনেকটা জনপ্রিয়তা লাভ করা যায় ৷ আর পাশাপাশি একটা বাড়তি চেষ্টা থাকে কিছুটা আয়ের পথ খোঁজার ৷

কিন্তু কোন পথে এই আয় করা যাবে অথবা এই আয় কেমন ভাবেই বা করা যাবে, তা এখনও অনেকেই জানেনা ৷ শুধুমাত্র আকর্ষণীয় ভিডিও দিলেই যে সোশ্যাল মিডিয়ায় আপনি জনপ্রিয়তা লাভ করবেন তা কিন্তু একেবারেই নয় ৷ এরজন্যও প্রয়োজন নির্দিষ্ট কিছু পদ্ধতির ৷

‘কনটেন্ট ইজ দ্য কিং’, ফলে ইউটিউব চ্যানেলের কনটেন্ট বা বিষয়ের প্রতি নজর আপনাকে নজর দিতে হবে অনেকটাই৷ বিষয়বস্তু যে সবসময়ই আকর্ষণীয় হয় এবং তা যেন দেখতে ভালোলাগে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

যেকোনও ইউটিউব চ্যানেল থেকে আয়ের প্রাথমিক শর্তই হল রেগুলারিটি৷ অর্থাৎ, চ্যানেলের অ্যাডমিনকে নিয়মিত কনটেন্ট আপডেট করতে থাকতে হবে৷ প্রয়োজনে চ্যানেল খোলার আগে থেকেই দুই বা তিন সপ্তাহের কনটেন্ট নিজের কাছে মজুত করে রাখতে হবে ৷

উপরের সমস্ত শর্ত ঠিকঠিক ভাবে পূরণ করলে,এরপর আসে ওয়াচ আওয়ার বাড়ানোর প্রসঙ্গ৷ টেক বিশারদদের মতে, প্রথম ক্ষেত্রে টার্গেট নিতে হবে যত দ্রুত সম্ভব ওয়াচ আওয়ারের মাত্রা চার হাজার অতিক্রম করে ফেলা৷

এরপরেই আপনার ইউটিউব চ্যানেলের সঙ্গে গুগল অ্যাডসেন্সকে যুক্ত করতে পারবেন৷ তবে এখানেই কাজ শেষ হয় না৷ এরপর যত আকর্ষণীয় ভিডিও চ্যানেলে আপলোড করা হবে ততই চ্যানেলের জনপ্রিয়তা বাড়বে এবং চ্যানেলে আসতে থাকবে গুগল অ্যাড৷