প্রিয়নবী যেভাবে শয়তানের কুমন্ত্রণা থেকে আশ্রয় চাইতেন

‘নিশ্চয় শয়তান মানুষের প্রকাশ্য দুশমন।’ এটা আল্লাহ তাআলার ঘোষণা। কুরআনের অন্য জায়গায় আল্লাহ তাআলা মানুষকে সতর্ক করতে আরো ঘোষণা করেছেন, ‘হে আদম সন্তানেরা! তোমাদেরকে যেন এই শয়তান পথভ্রষ্ট ও বিভ্রান্ত না করে ফেলে, যেমন তোমাদের মা-বাবাকে পথভ্রষ্ট করে চির সুখের জান্নাত থেকে বের করে দিয়েছিল।’

এ কারণে প্রিয়নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম শয়তানের নানারকম ষড়যন্ত্র ও বেড়াজাল থেকে মুক্ত থাকতে সব সময় আল্লাহর শেখানো ভাষায় তাঁর আলীশান দরবারে আশ্রয় প্রার্থনা করতেন।

প্রিয়নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের এ প্রার্থনা উম্মতে মুহাম্মাদির জন্য শয়তানের আক্রমণ থেকে বেঁচে থাকার সর্বোত্তম শিক্ষা।

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম শয়তানের কুমন্ত্রণা থেকে আশ্রয় লাভে বলতেন-উচ্চারণ : রাব্বি আউজুবিকা মিন্ হামাযাতিশ শাইয়াত্বীন। ওয়া আউজুবিকা রাব্বি আইঁ ইয়াহদুরুন।

অর্থ : ‘হে আমার পালনকর্তা! আমি শয়তানের প্ররোচনা থেকে আপনার আশ্রয় প্রার্থনা করছি। হে আমার প্রভু! আমার নিকট তাদের উপস্থিতি থেকে আপনার আশ্রয় প্রার্থনা করছি।’ (সুরা মুমিনূন : আয়াত ৯৭-৯৮)

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে শায়তানে যাবতীয় কুমন্ত্রণা থেকে মুক্ত থাকতে কুরআনুল কারিমে উল্লেখিত আয়াতদ্বয় পড়ে তাঁর কাছে আশ্রয় প্রার্থনা করার তাওফিক দান করুন। আমিন।